The
Poetry
of Piu Roy

লজ্জা

ও মা দুর্গতিনাশিনী দুগ্‌গে- সেই কবে মেরেছিলে মা মহিষাসুরকে, বাঁচা মাগো বাঁচা নারীকে , আজ অসুরে ভরেছে ধরণী নিত্য শিকার নির্ভয়ারা ; ঘরে কিম্বা বাইরে,বাসে অথবা গাড়ীতে- অসুরদলনী তুমি জাগো, জাগো মা জাগো । রণং দেহি , যশং দেহি মাগো বাঁচা জননী বাঁচা নারীর লজ্জা । মাগো যাদের তুই পূজিতা তারাই দলে তোরে চিন্ময়ী-রুপেতে – ও মা দুগ্‌গে সাজ আবার আবার ত্রিশুল হেনে বধ কর অসুরদের, বাঁচা জননী বাঁচা নারীর লজ্জা । হে কেশব এক দ্রোপদীর আপমানে – সাক্ষী হয়েছে মেদিনী কুরুক্ষেত্তের ; তবে আজ তুমি কেন নিঃস্তব্ধ ! নিত্য হেথা আপমানিত দ্রোপদ্রীরা বাঁচাও বাঁচাও বাঁচাও কেশব তুমি বাঁচাও তাদের লজ্জা । যে নারীর পদক্ষেপে আসে সৌভাগ্য সেই নারীর অশ্রু আর শোনিতে আজ প্লাবিত বসুন্ধরা – এক দ্রোপদীর অশ্রুতে ঘটেছিলো মহাভারত তবে আজ কেন আসে না সেই প্লাবণ ভাসিয়ে দিতে সব পাপ আর অপমান । হে মাধব লাঞ্ছনার বঞ্ছনার কর অবসান, বাঁচাও বাঁচাও বাঁচাও নারীর লজ্জা । পিউ রায়